শনিবার | ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

আগামী ৫ বছরে হবিগঞ্জ পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়নকাজ হবে- এডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি

প্রকাশিত : জুন ২২, ২০২১




জার্নাল প্রতিবেদক ॥ হবিগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নে মেয়র আতাউর রহমান সেলিম ইতিমধ্যে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন দপ্তরে জোড়ালোভাবে যোগাযোগ শুরু করেছেন। সকলের মতামত ও পরামর্শে আগামী ৫ বছরে হবিগঞ্জ পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়নকাজ হবে। আমরা যেন ৫ বছর পর গর্ব করে বলতে পারি পৌরসভার মেয়র হবিগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নে সফল হয়েছেন।- পৌরসভা প্রাক বাজেট মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে এসব কথা বলেন হবিগঞ্জ-লাখাই-শায়েস্তাগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট মোঃ আবু জাহির।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় পৌর টাউন হলে হবিগঞ্জ পৌরসভা আয়োজিত এ প্রাকবাজেট মতবিনিময় সভা অনুুষ্ঠিত হয়। হবিগঞ্জ পৌরসভার ২০২১-২২ ইং অর্থবছরের জন্য একটি গনমূখী ও বাস্তবসম্মত বাজেট প্রনয়ণের লক্ষে হবিগঞ্জ পৌরএলাকার ব্যবসায়ী সাবেক জনপ্রতিনিধি, আইনজীবীসহ পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ , সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ, এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সাথে বাজেট সম্পর্কিত মতবিনিময়ের জন্য সভার আহবান করা হয়। প্রধান অতিথি বলেন,‘ মেয়র আতাউর রহমান সেলিমের উপর পৌরবাসীর অনেক প্রত্যাশা। তাঁর উপর অনেক দায়িত্ব। সে কারনে কিভাবে নাগরিক সেবা বাড়ানো যায় সে ব্যাপারটি মেয়রের মাথায় থাকবে।’ মেয়র পৌরপরিষদকে সাথে নিয়ে স্বল্প মেয়াদী, মধ্যম মেয়াদী ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা প্রস্তুত করে পৌরসভার উন্নয়নে এগিয়ে নিয়ে যাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এডভোকেট আবু জাহির এমপি। তিনি পৌরসভাকে এগিয়ে নিতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। পৌরপরিষদকে সহযোগিতা করতে পৌরবাসীর প্রতিও তিনি আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে মেয়র আতাউর রহমান সেলিম বলেন, ‘আপনাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে হবিগঞ্জ পৌরসভার সমস্যাগুলো একে একে সমাধান করা সম্ভব হবে।’তিনি বলেন ‘ডাম্পিং স্পট বাস্তবায়ন করতে আমরা সর্বাত্মক প্রচেস্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কারন আমরা বিশ্বাস করি এক বছরের মাঝে নিজস্ব ডাম্পিং সাইট বাস্তবায়ন করতে না পারলে পৌরসভার ময়লা আবর্জনা অপসারণ করার আর কোন জায়গা অবশিষ্ট থাকবে না। সে কারণে এ ব্যাপারটি আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখার চেষ্টা করছি।’ তিনি আরো বলেন ‘এডভোকেট আবু জাহির এমপি মহোদয়ের সহযোগিতায় আমরা নতুন নতুন প্রকল্পে অর্ন্তভূক্ত হয়ে হবিগঞ্জ পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভায় রূপান্তরিত করবো।’

মেয়র আতাউর রহমান সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায়বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক পৌরচেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী,জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, বাপা হবিগঞ্জের সভাপতি প্রফেসার ইকরামুল ওয়াদুদ, হবিগঞ্জ মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদকমোঃ ফরিদ মিয়া,চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রী হবিগঞ্জের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোঃ শামছুল হুদা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জগদীশ মোদক,শংকর পাল, আব্দুর রহমান, সফিকুল বারী আওয়াল, সমীর বনিক, আইনজীবী এডভোকেট নলীনি কান্ত রায় নিরু, চিকিৎসক ডাঃ অসিত রঞ্জন দাস, সাবেক জনপ্রতিনিধি মুকুল আচার্যী, আব্দুল মোতালিব মমরাজ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন কলি,আওয়ামীলীগে নেতা এডভোকেট নিলাদ্রী পুরকায়স্থ টিটু, মশিউর রহমান শামীম, জাসদ নেতা আবু হেনা মোস্তাফা কামাল, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মাসুদ আলী ফরহাদ, জীবন সংকেত নাট্যগোষ্ঠী সভাপতি অনিরুদ্ধ কুমার ধর শান্তনু, শিশু সংগঠক বাদল রায় ও শ্রমিক লীগ নেত্রী রেবা চৌধুরী।

কাউন্সিরলরদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মোঃ জাহির উদ্দিন, পান্না কুমার শীল, মোহাম্মদ জুনায়েদ মিয়া, গৌতম কুমার রায়, টিপু আহমেদ, শাহ সালাউদ্দিন আহাম্মদ টিটু, আলাউদ্দিন কুদ্দুছ, প্রিয়াংকা সরকার, খালেদা জুয়েল ও সুমা জামান। আরো উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ পৌর সচিব মোঃ ফয়েজ আহমেদসহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহনকারীদের যে বিষয়গুলো উঠে আসে সেগুলো হলো, পৌরসভার নিজস্ব ডাম্পিং সাইট বাস্তবায়ন করা, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, পুরাতন খোয়াই নদী দখলমুক্ত করে ওয়াক ওয়ে নির্মানসহ নান্দনিক কে গড়ে তোলা, পৌরএলাকার বাজারসমূহ উন্নয়ন ও আধুকিকরণ, কবরস্থানের উন্নয়ন, শিশুপার্ক গড়ে তোলা, ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ, বেদখল হওয়া পৌরসভার পুকুর ও জমি উদ্ধার, বিল্ডিং কোড অনুসরণ করে স্থাপনা নির্মাণ, মশক নিধন অভিযান জোরদার করা, টমটম চলাচল নিয়ন্ত্রন করে যানজট নিরসন, কিবরিয়া মিলনায়ন সংস্কার, জন্মনিবন্ধনসহ নাগরিক সেবা জোরদার করা, রাস্তাঘাট ও ড্রেন নির্মাণ, সড়কবাতি কার্যক্রম জোরদার করা ইত্যাদি। এছাড়াও পৌরসভার পক্ষ হতে বিভিন্ন দিবস পালন, শিক্ষা সহায়তা, খেলাধুলার উন্নয়নে কর্মসূচী গ্রহন, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহ উন্নয়ন, প্রতিবন্ধীদের জন্য সহায়তা, সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে পৃষ্টপোষকতা, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, নাগরিক শোকসভা পালন ইত্যাদি ব্যাপারে আলোচনা হয়। প্রধান অতিথি এডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি পৌরপরিষদ সকলের মতামত ও পরামর্শকে আমলে নিয়ে গ্রহনযোগ্য প্রস্তাবাবলীর সমন্বয়ে একটি সুন্দর চুড়ান্ত বাজেট প্রস্তুত করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

এই বিভাগের আরো নিউজ

শেষ ওভারে জিতলো অস্ট্রেলিয়া
শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে ৮ দফা দাবি
ইকবালের বিষয়ে ফখরুলের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের
একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন ইকবাল
কুমিল্লার ঘটনায় গ্রেফতার ইকবালকে আদালতে তোলা হয়েছে
আজকের সর্বশেষ সব খবর