মঙ্গলবার | ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

আন্দোলনের মাধ্যমেই আওয়ামীলীগ সরকারের কবল থেকে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে: জি কে গউছ

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১




স্টাফ রিপোর্টার ॥ ১৪তম কারামুক্তি দিবসের আলোচনা সভায় বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও টানা ৩ বারের নির্বাচিত হবিগঞ্জ পৌরসভার পদত্যাগকারী মেয়র আলহাজ্ব জি কে গউছ বলেন- আজ্ঞাবহ প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে রেখেছে। ১/১১ এর সময়ে মইনুদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকারও বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দি করেছিল। কিন্তু আইনী লড়াইয়ের মাধ্যমেই সকল ষড়যন্ত্রের জাল চিহ্ন করে তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন। ইনশাআল্লাহ, আন্দোলনের মাধ্যমে আওয়ামীলীগ সরকারের কবল থেকেও দেশন্ত্রেী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে।

তিনি বলেন- বাংলাদেশের মানুষ বিএনপিকে ভালবাসে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ভালবাসে, মানুষ পরিবর্তন চায়, ফ্যাসিষ্ট আওয়ামীলীগ সরকারের পতন চায়। সেই উপলব্দি থেকেই আওয়ামীলীগ মানুষের ভোটাধিকার কেরে নিয়েছে, দেশের গণতন্ত্র হরণ করেছে। আওয়ামীলীগ দেশে একদলীয় শাসন কায়েম করেছে। কিন্তু পৃথিবীর কোন স্বৈরশাসকই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে পারেনি, আওয়ামীলীগও থাকতে পারবে না। তিনি গতকাল শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) রাতে শায়েস্তানগরস্থ দালের কার্যালয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ১৪তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে জেলা বিএনপির আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সদস্য এম জি মোহিতের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি এডভোকেট শামছু মিয়া চৌধুরী, এডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন শাহীন, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী বেলাল, জেলা বিএনপির সদস্য আজিজুর রহমান কাজল, লাখাই উপজেলা বিএনপির সিনিযর যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াদুদ তালুকদার আব্দাল, এডভোকেট আবুল ফজল, এডভোকেট মোঃ ইলিয়াছ, সৈয়দ তোফালে ইসলাম কামাল, এডভোকেট আব্দুল হাই, গীরেন্ড চন্দ্র রায়, এডভোকেট খন্দকার শাহীন, মাহবুবুর রহমান হেলাল, শেখ সুহেল।

সদর উপজেলা: হবিগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুল ইসলাম মতিন, আজম উদ্দিন, এডভোকেট আফজাল হোসেন, হাবিবুর রহমান, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ, বিএনপি নেতা আব্দুল জব্বার খান, ফরিদ আহমেদ, আলতাফ হাজী, আবুল কালাম আজাদ, সৈয়দ আাজহারুল হক বাকু, আব্দুর রউফ, জয়নাল আবেদীন জালাল, ফারুক মিয়া, শাহীন মিয়া, ডাঃ আকিকুল ইসলাম বকুল, আব্দুর রাজ্জাক, হাফেজ মাওলানা ওসমান, ফয়সল আহমেদ তোতা, শোয়েব মাষ্টার, মস্তুফা মিয়া, আব্দুল আউয়াল মেম্বার, আব্দুল জলিল, মজনু তালুকদার, জিল্লুর মিয়া, আব্দুস শহীদ, আব্দুল হামিদ, আব্দুল কাদির, মতিন মেম্বার, রুবেল মিয়া প্রমুখ।

হবিগঞ্জ পৌর বিএনপি: হবিগঞ্জ পৌর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল ইসলাম নানু, যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবুল আলম হেলাল, নাজমুল হোসেন বাচ্চু, মুজিবুর রহমান মুজিব, দেওয়ান মুহাইমিন চৌধুরী ফুয়াদ, আব্দুর রাজ্জাক চৌধুরী বকুল, রুহুল আমিন, আলী আকবর, শাহ মুশলিম, গাজী রিপন, আনিসুর রহমান জেবু, ফরিদ মিয়া প্রমুখ।

যুবদল: জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফিকুর রহমান সিতু, মহসিন সিকদার, এডভোকেট গুলজার খান, টিপু আহমেদ, মালেক শাহ আমিনুল ইসলাম আকঞ্জি, মিজানুর রহমান সুমন, শাহানুর রহমান আকাশ, হাবিবুর রহমান, শাহিদুল ইসলাম রিপন, আক্তার হোসেন, নুরুল হক জি এম, মাহবুবুর রহমান মালু, মাহবুব রহমান, আনোয়ার হোসেন বাদল, সোহাগ চৌধুরী মানিক প্রমুখ।

শ্রমিকদল: জেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এস এম বজলুর রহমান, সোসেল এ চৌধুরী, আব্দুল হক প্রমুখ। স্বেচ্ছাসেবক দল: জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জহিরুল হক শরীফ, আজিজুর রহমান বাবলু, শহিদুল আলম চৌধুরী আকিক, শেখ মুখলিছুর রহমান, আব্দুল আহাদ আনসারী, আব্দুল কাইয়ুম, জাকির হোসেন প্রমুখ। কৃষক দল: জেলা কৃষক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম, পৌর কৃষকদলের আহ্বায়ক আশরাফুল আলম সবুজ। মৎস্যজীবি দল: জেলা মৎস্যজীবি দলের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ প্রমুখ।

ছাত্রদল: জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম হাফিজুল ইসলাম, গোলাম মাহবুব, আল আমিন তালুকদার, কামরুজ্জামান উজ্জল, শাহ আলম হোসাইন, ইকবাল আহমেদ চৌধুরী, তানিম আহমেদ খান, এম সাইফুর রহমান, নাজমুল হোসেন অনি, আবিদুর রহমান রাকিব, মশিউর রহমান টিপু, এহসানুল মাহবুব মাহি, রুমেল খান চৌধুরী, মোশাররফ হোসেন রনি, রিয়াদুল ইসলাম রবিন প্রমুখ।