মঙ্গলবার | ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না

প্রকাশিত : জুন ১৮, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক ॥ ধর্মীয় বক্তা হিসেবে পরিচিত মো. আফছানুল আদনানের (আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনান) আত্মগোপন উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না বলে জানিয়েছে রংপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

শুক্রবার (১৮ জুন) বিকাল ৫টার দিকে প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান রংপুর মহানগর পুলিশের ক্রাইম ডিভিশনের উপ-কমিশনার আবু মারুফ হোসেন।

তিনি বলেন, এটা উদ্দেশ্যমূলক না। সরকারকে বা দেশের মানুষকে বিব্রত করতে এটা করেনি। এখন পর্যন্ত এটা মনে হয়নি। এত কিছু ভেবে তারা করেনি। আবু ত্ব-হা শিক্ষিত ছেলে। তাই সে ফোন বন্ধ করে রেখেছিলো। সে জানে তার ফোন যদি অন করা হয় তাহলে তাকে শনাক্ত করা যাবে। তাই সে ফোন সুইজড অফ করে রেখেছিলো। তারা সবাই একসঙ্গে ছিলেন। একই বাড়িতে ছিলেন।

‘ড্রাইভার আমিন উদ্দিনকে মডিফাইয়েড করে বলেছিলো, আমাকে একটু সহায়তা করো। তাহলে আমার জন্য ভালো হবে। আমাকে এ পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে হলে আমাকে একটু হেল্প করো। আমারা একটু গোপনে থাকি।’ তিনি বলেন, সামাজিক ও পারিবারিক পরিস্থিতি থেকে বাঁচতেই আত্মগোপন করেছেন ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আবু ত্ব-হাকে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়। ৮ দিন ধরে নিখোঁজ থাকার পর সন্ধান মিলেছে রংপুরের আলোচিত বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের। শুক্রবার দুপুরে তার শ্বশুরের বাসায় তাকে পাওয়া যায়।

রংপুর মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ জানান, বিকাল ৩টার দিকে তাকে রংপুর নগরের আবহাওয়া অফিস সংলগ্ন মাস্টার পাড়ার শ্বশুরবাড়ি থেকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

গত ১০ জুন রংপুর থেকে ঢাকায় আসার পথে ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান নিখোঁজ হন। এছাড়াও তার সঙ্গে নিখোঁজ হন আব্দুল মুহিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দীন। তবে কোথা থেকে কীভাবে নিখোঁজ হন এমন তথ্য দিতে পারছিলো না আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও।

অনেকে অভিযোগ তুলছিলো, সমসাময়িক অন্যান্য ইস্যুতে আন্তরিকতা দেখালেও ত্ব-হার নিখোঁজের বিষয়ে তেমন কোনো তৎপরতা দেখাচ্ছে না সরকার। এই নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছিলো।

ত্ব-হার নিখোঁজ হওয়ার তথ্য জানিয়ে দারুসসালাম এবং মিরপুর থানায় গেলে কোনো থানাই সাধারণ ডায়েরি বা মামলা গ্রহণ করেনি বলেও অভিযোগ করেছেন তার পরিবার। এ নিয়ে সর্বশেষ রংপুর সদর থানায় একটি জিডি করা হয়।

ত্ব-হার মা আজেদা বেগম জানিয়েছিলেন, গত ১০ জুন সকালে তাকে ত্ব-হা জানিয়েছিলেন, বেশ ক’দিন ধরে দুই অপরিচিত ব্যক্তি তাকে অনুসরণ করছে। এ নিয়ে জীবন শঙ্কায় আছেন তিনি। তারা তার ক্ষতি করতে পারে। ঢাকায় চলে যেতে চান তিনি, ঢাকায় গেলে নিরাপদে থাকবেন।

আজেদা বেগম বলেন, ওইদিন বিকেল ৪টার দিকে ত্ব-হা তার তিন অনুসারীসহ ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। শুক্রবার সাভারের একটি মসজিদে বক্তৃতা শেষ করে কিছুদিন ঢাকায় থাকার কথা ছিল তার। ঢাকায় যাবার সময় হঠাৎ আমাকে বুকে জড়িয়ে খুব কান্না করছিলো ত্ব-হা। নামাজে সেজদায় পড়ে তার নিরাপত্তা ও নিরাপদে ফিরে আসার জন্য দোয়াও করতে বলেছিলো। এরপর ওই রাত থেকেই নিখোঁজ ত্ব-হা।

এই বিভাগের আরো নিউজ

আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না
আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না
আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না
আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না
আবু ত্ব-হার ‘আত্মগোপন’ উদ্দেশ্যমূলক ছিলো না
আজকের সর্বশেষ সব খবর