রবিবার | ২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

‘আমাদের আপস করার ইতিহাস নেই’

প্রকাশিত : আগস্ট ১১, ২০২২




জার্নাল ডেস্ক ॥ আত্মপ্রকাশের তিন দিন পর বিক্ষোভে সমাবেশ করেছে সাত দলের সমন্বয়ে গঠিত গণতন্ত্র মঞ্চ। এই মঞ্চের নেতারা বলেন, গণতন্ত্র মঞ্চ নিয়ে সরকার দুঃস্বপ্ন দেখছে। এই মঞ্চের নেতাদের জীবনে আপস করার কোনো ইতিহাস নেই। আন্দোলন জনগণের জন্য। এই আন্দোলন সাত দলের সীমাবদ্ধ থাকবে না। বিরোধী সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে বৃহত্তর ঐক্যের মাধ্যমে রাজপথে গণবিস্ফোরণ ঘটিয়ে এই সরকারকে হটাতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘ফ্যাসিবাদ হটাও, শাসনব্যবস্থা বদলাও, জ্বালানি তেলের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধি রুখে দাঁড়াও’ স্লোগানে বিক্ষোভে সমাবেশে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন নবগঠিত প্ল্যাটফর্মটির নেতারা।

গণতন্ত্র মঞ্চের অন্যতম শরিক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, সুইস ব্যাংকে কাদের টাকা আছে, তালিকা দেখলে বোঝা যাবে, তারা সরকারের কোলে বসে আছে। দেশে সরকার নেই, এখন সার্কাস আছে ক্ষমতায়। সরকার সিন্ডিকেটের হাতে চলে গেছে। কুইক রেন্টাল পাওয়ার প্ল্যান্টের তালিকা দেখেন। কারা মালিক? তালিকা দেখলে বোঝা যাবে, কারা এরা? তারা সরকারের কোলের মধ্যে বসে আছে। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করে যাদেরকে লাভ দেওয়া হচ্ছে তারা কারা? তারা সিন্ডিকেটের লোকজন, সরকারের কোলে ওরা মধ্যে বসে আছে। এখন আবার শোনা যাচ্ছে গ্যাস ও পানির দাম আবার বৃদ্ধি করবে।

জেএসডির সভাপতি বলেন, আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতা আসে তখনই দুর্ভিক্ষ আসে, ১০ টাকার চালের মূল্য ৫০ টাকা হয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে রক্ষীবাহিনী আসে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে হেলমেট বাহিনী আসে।

সভাপতির বক্তব্যে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, কোনো দেশের টাকা যদি অবৈধভাবে পাচার হয়, সেই দেশ যদি সুইস ন্যাশনাল ব্যাংকের কাছে চিঠি দেয়, তাহলে তারা কারা টাকা পাচার করেছে এবং কত টাকা পাচার করেছে, সেই তথ্য দেয়। কিন্তু গত কয়েক বছরে সরকার এই তালিকা চায়নি। কেন চায়নি? কারণ, থলের বিড়াল বের হবে। এরা যে চোর, অর্থ পাচার করে, এটা প্রমাণিত হবে।

বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, আকবর খান, গণসংহতি আন্দোলনের জোনায়েদ সাকি, আবুল হাসান রুবেল, গণঅধিকার পরিষদের নুরুল হক নূর, রাশেদ খান, ভাসানী অনুসারী পরিষদের শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের হাসনাত কাইয়ুম, ইমরান ইমন, জেএসডির তানিয়া রব, নাগরিক ঐক্যের শহীদুল্লাহ কায়সার বক্তব্য দেন।

বাম গণতান্ত্রিক জোট ছেড়ে আসা দুই দল এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দুই দলসহ সাত সংগঠন মিলে যে নতুন জোট গড়ছে, সেই ‘গণতন্ত্র মঞ্চ’ আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মপ্রকাশ হয়েছে সোমবার।

আজকের সর্বশেষ সব খবর