সোমবার | ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ইদানীং সাংবাদিকতার নামে এসব কী হচ্ছে: হাইকোর্ট

প্রকাশিত : আগস্ট ৩, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক ॥ দুদকের এক কর্মকর্তার বদলি আদেশ নিয়ে ভুল সংবাদ পরিবেশন বিষয়ে শুনানির সময় দেশের সাংবাদিকতার পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলে হাইকোর্ট। এ সময়ে আদালত বলেন, ইদানীং সাংবাদিকতার নামে এসব কী হচ্ছে?

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) শুনানির এক পর্যায়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব কথা বলে।

এ সময় আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক উপকমিটি থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর গ্রেপ্তার হেলেনা জাহাঙ্গীরের আইপি টিভি জয়যাত্রা নিয়েও কথা বলে আদালত। বিচারক বলেন, ‘সাংবাদিকতার নামে কী হচ্ছে দেখেন না। কী এক (হেলেনা) জাহাঙ্গীর বেরিয়েছে। আইপিটিভি নামে কত চ্যানেল, কত টিভি।’

দুদকের এক কর্মকর্তার বদলি আদেশ নিয়ে ভুল সংবাদ করায় চট্টগামের পূর্বকোণসহ বেশ কিছু স্থানীয় পত্রিকা বিষয়ে আলোচনা করাই শুনানির মূল বিষয় ছিল।

শুনানির শুরুতেই দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান আদালতকে জানান, চট্টগ্রামের পূর্বকোণ পত্রিকা সংশোধনী ছেপেছে। এই ভুলের জন্য তারা ক্ষমা প্রার্থনা করেছে।

তিনি বলেন, ‘আদালতের আদেশ নিয়ে যে আইনজীবী সার্টিফায়েড কপি দিয়েছে সেটিকে আমার কাছে জাল মনে হয়েছে। তার কারণ জজ সাহেবের নামও ভুল লিখেছে।’

তখন বিচারক আদালত বলেন, ‘এটা জাল হয়ে থাকলে এর দায়ভার পিটিশনারকে নিতে হবে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার আদেশ হবে। আরও যদি কোনো তথ্য থাকে তাহলে দেন। কারণ এটা ধরে নিতে হবে পিটিশনার এবং তার আইনজীবী এটা করেছেন।’

এ সময় দুদক আইনজীবী জানান, দৈনিক পূর্বকোণ ছাড়াও মহানগর চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার নিউজে এসেছে।

তখন বিচারক বলেন, ‘আপনি সবগুলাতে যোগাযোগ করেন। আপনার অফিস থেকে তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেন।’

দুদক আইনজীবী বলেন, ‘পূর্বকোণের যে রিপোর্টার পাবলিশ করেছেন তিনি আমাকে বলেছেন, অনেকগুলো পত্রিকায় তারা দেখে ছেপেছে। এরপরও তারা ক্ষমা চেয়েছেন। এছাড়া আমি দুদক অফিসে জানিয়েছি।

তিনি বলেন, ‘এখন কমিশনের সিদ্ধান্ত হলো যদি এই নিউজ বা রিটের পেছনে দুদকের কোনো কর্মকর্তা কর্মচারীর ইন্ধন থাকে, তাহলে দুদক তার নিজস্ব ইনটেলিজেন্সির মাধ্যমে খাতিয়ে দেখবে। এরপরও আদালত যে নির্দেশ দেবে সে অনুযায়ী দুদক পদক্ষেপ নেবে।’

তখন বিচারক বলেন, ‘মৌখিকভাবে শুনলাম। সামগ্রিক বিষয়ে বৃহস্পতিবার আদেশ দেব। এক পর্যায়ে বিচারক সাংবাদিকতার নামে কী হচ্ছে দেখেন না। কী এক জাহাঙ্গীর বেরিয়েছে আইপি টিভি, কত চ্যানেল, কত টিভি।’

দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনের বদলির আদেশ স্থগিত করেছে হাইকোর্ট- এমন শিরোনামে গত বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। অথচ হাইকোর্ট এমন কোনো আদেশই দেয়নি।

বিষয়টি সোমবার আদালতের নজরে আনা হলে আদালত দুদক আইনজীবীকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দেয়। পরে দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান চট্টগ্রামের দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকার সংশ্লিষ্ট রিপোর্টারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তখন তিনি জানান, চট্টগ্রামের বেশ কয়েকটি পত্রিকায় নিউজ দেখে তারাও রিপোর্টটি করেছে। তারা নিজেদের ভুল স্বীকার করে সংশোধনীও ছেপেছে এবং আদালতের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

এ বিষয়ে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘চট্টগ্রামের দৈনিক পূর্বকোণ লিখেছে দুদক কর্মকর্তার বদলির আদেশ হাইকোর্ট স্থগিত করেছে। আসলে হাইকোর্ট কোনো বদলির আদেশ স্থগিত করেননি। বরং হাইকোর্ট তার আবেদনটি ডিলিট করে দিয়েছে।

‘সেই দুদক কর্মকর্তার বদিল আদেশ স্থগিত’ শিরোনামে গত ২৯ জুলাই চট্টগ্রামে দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদটি সোমবার আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী। তখন আদালতের বিচারক বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম বলেন, ‘না, আমরা এমন কোনো আদেশ দেয়নি।’

এ সময় আইনজীবী ওই পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটি আদালতকে দেখান। তখন আদালত দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খানকে ডেকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়।

আজকের সর্বশেষ সব খবর