সোমবার | ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ইয়াসের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গে নিহত বেড়ে ৬

প্রকাশিত : মে ২৭, ২০২১




আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বড় আকার ধারণ করতে না পারলেও ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে তাণ্ডব চালিয়ে গেছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস।

ভারতীয় মিডিয়াগুলো জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে দুই রাজ্যের উপকূলের ঘরবাড়ি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ডুবে গেছে ফসলের খেত। আর নিহত হয়েছেন ছয়জন। উড়িষ্যায় ও পশ্চিমবঙ্গ উভয় রাজ্যেই তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

এ দিকে ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আরও উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপ আকারে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ছয়টায় উত্তর উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন ঝাড়খণ্ড এলাকায় অবস্থান করছিল। এর প্রভাবে সাগর উত্তাল রয়েছে।

অপর দিকে দিঘায় জলের প্রবল জলোচ্ছ্বাসে কার্যত পানির নিচে চলে গিয়েছে সমুদ্র তীরবর্তী এলাকা। ভেসে গিয়েছে বিস্তীর্ণ অঞ্চল। ধামড়াতেও প্রবল জলোচ্ছ্বাস দেখা দেয়। সঙ্গে ছিল ঝোড়ো হাওয়া ও ভারী বর্ষণ। বিধ্বস্ত দিঘায় উদ্ধার অভিযানে নামে সেনা সদস্যরা।

মঙ্গলবার (২৫ মে) রাত থেকেই দিঘায় শুরু হয়েছিল বৃষ্টি। সমুদ্রে ঢেউয়ের উচ্চতাও বাড়ছিল। সময় যত এগিয়েছে তত বৃষ্টির তীব্রতা বাড়ে। সেই সঙ্গে দিঘা ও নিউ দিঘায় গার্ডরেল ছাপিয়ে জল ঢুকতে শুরু করে। তার ফলে বুধবার সকালেই জলমগ্ন হয়ে যায় মূল শহর। ঘূর্ণিঝড় আসার আগেই সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করে প্রশাসন। পশ্চিমবঙ্গে নামানো হয় সেনা।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় মমতার সরকারের ভূমিকার প্রশংসা করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তিনি বলেন, আমফানের মতো পরিস্থিতি তৈরি হোক কেউ আমরা চাই না। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় কেন্দ্র-রাজ্য একসঙ্গে যেভাবে কাজ করছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। সব কাজেই এভাবে সমন্বয় রাখা প্রয়োজন।

উড়িষ্যায় প্রায় ১৪ লাখ মানুষকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও দেড় লাখ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় নেয়া হয়েছে। উড়িষ্যা সরকারের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এত মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে রাখা রীতিমতো কঠিন কাজ। সূত্র : বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড

আজকের সর্বশেষ সব খবর