শনিবার | ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

‘ঘটনা সত্য’: সাগর-সিরাজ-সুমনের নামে মামলার আবেদন

প্রকাশিত : আগস্ট ১১, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক ॥ একটি নাটক এবং টেলিভিশনে একটি আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কে ‘নেতিবাচক, ভ্রান্ত ও ক্ষতিকর’ ধারণা এবং শব্দ ব্যবহারের অভিযোগে আদালতে একটি মামলার আবেদন হয়েছে। বশির আল হোসাইন নামের একজন প্রতিবন্ধী অধিকার কর্মী বুধবার (১১ আগস্ট) ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে দুটি মামলার আবেদন করেন।

তার প্রথম মামলার বিষয়বস্তু ‘ঘটনা সত্য’ নামের একটি নাটক নিয়ে, যা চ্যানেল আইয়ের ঈদুল আজহার আয়োজনে ২৩ জুলাই প্রচার করা হয়েছিল। এর আগেও নাটকটি নিয়ে সমালোচনা হয়েছিল। আর দ্বিতীয় মামলার বিষয়বস্তু চ্যানেল আইয়ের আলোচনা অনুষ্ঠান ‘টু দ্য পয়েন্ট’ এর ১১ জুলাইয়ের পর্ব নিয়ে, যেখানে একজন আলোচকের কথায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে ‘নেতিবাচক ধারণা’র প্রকাশ ঘটেছে বলে বশির আল হোসাইনের অভিযোগ।

নাটক নিয়ে মামলায় আসামি করা হয়েছে চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, নাটকের চিত্রনাট্যকার মঈনুল সানু, পরিচালক রুবেল হাসান, অভিনেতা আফরান নিশো, অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরীকে।

আর আলোচনা অনুষ্ঠান নিয়ে মামলায় আসামি করা হয়েছে ফরিদুর রেজা সাগর, শাইখ সিরাজ, অনুষ্ঠান পরিকল্পনাকারী জাহিদ নেওয়াজ খান, প্রযাজক রাজু আলিম, উপস্থাপক সোমা ইমলাম এবং আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকা ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনকে।

অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আবু বকর ছিদ্দিকী বুধবার বাদী বশির আল হোসাইনের জবানবন্দি শোনার পর বিষয়টি আদেশের জন্য অপেক্ষমাণ রেখেছেন।

মামলা দুটির বাদী বশির আল হোসাইন, সকল সাক্ষী এবং আইনজীবী মোহাম্মদ রেজাউল করিম সিদ্দিকী সকলেই প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বলে জানান বাদীপক্ষের অন্যতম আইনজীবী জীবনান্দ চন্দ জয়ন্ত।

চ্যানেল আইয়ের ঈদের আয়োজনে ‘ঘটনা সত্য’ নাটকটি প্রচারের পর প্রযোজন সংস্থা সেন্ট্রাল মিউজিক অ্যান্ড ভিডিওর (সিএমভি) ইউটিউব চ্যানেলে তা প্রকাশ করা হয়েছিল। কিন্তু বিশেষ শিশুদের নিয়ে ‘অবৈজ্ঞানিক বার্তা’ প্রচারের অভিযোগ ওঠার পর তুমুল বিতর্কের মধ্যে নাটকটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

মামলার আর্জিতে বলা হয়েছে, ‘ঘটনা সত্য’নাটকে দেখানো সংলাপে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও তাদের বাবা মা ও পরিবারকে ‘ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে’।

আর দ্বিতীয় মামলায় বাদীর অভিযোগ ‘টু দ্য পয়েন্ট’ অনুষ্ঠানে আর্জেন্টিনা বনাম ব্রাজিলের খেলা প্রসঙ্গে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের একটি মন্তব্য নিয়ে।

মামলার আর্জিতে বলা হয়, “ওই টকশোতে সুমন বলেন, ‘আমার নিজের ছেলেটারে প্রতিবন্ধী বানাইয়া রাইখা আমি এখন আর্জেন্টিনার ছেলে এবং ব্রাজিলের ছেলে নিয়া লাফাচ্ছি।… লাফানো ঠিক আছে। আমরা অনেক ছোটবেলা থেকে ম্যারাডোনার ভক্ত, কিন্তু নিজের ছেলেটারে এভাবে প্রতিবন্ধী বানাব?”

দেশের ফুটবল খেলার মানের অবনতি, দুর্বল ব্যবস্থাপনা, ব্যর্থতা ও অবস্থার সঙ্গে তুলনা করে ‘প্রতিবন্ধী বানাইয়া রাইখা’ এবং ‘এভাবে প্রতিবন্ধী বানাব’ শব্দবন্ধ ব্যবহারের মাধ্যমে গণমাধ্যমে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কে ‘নেতিবাচক, ভ্রান্ত ও ক্ষতিকর’ ধারণা দেওয়া হয়েছে বলে বাদীর অভিযোগ।

তিনি আর্জিতে বলেছেন, এ ধরনের নেতিবাচক শব্দ ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইনের ‘স্পষ্ট লঙ্ঘন’ হয়েছে।

তার অভিযোগের বিষয়ে চ্যানেল আই কর্তৃপক্ষ বা আইনজীবী সুমনের বক্তব্য জানতে পারেনি।

এই বিভাগের আরো নিউজ

শেষ ওভারে জিতলো অস্ট্রেলিয়া
শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে ৮ দফা দাবি
ইকবালের বিষয়ে ফখরুলের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের
একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন ইকবাল
কুমিল্লার ঘটনায় গ্রেফতার ইকবালকে আদালতে তোলা হয়েছে
আজকের সর্বশেষ সব খবর