বুধবার | ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

জামিন চাইতে গিয়ে কারাগারে জিকে গউছসহ বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১, ২০২২




স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক জি কে গউছ, জেলা আহ্বায়ক আবুল হাসিম ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এনামুল হক সেলিমসহ ৪০ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ এমএলবি মেজবাহ উদ্দিন আহমেদের আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তাদের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও বিএনপির সাবেক সহসভাপতি অ্যাডভোকেট মঞ্জুর উদ্দিন আহমেদ শাহীন।

তিনি জানান, নেতাকর্মীরা কিছু দিন আগে উচ্চ আদালত (হাইকোর্ট) থেকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন নিয়েছিলেন। মঙ্গলবার তারা স্থায়ী জামিনের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন।

জানা গেছে, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার করানোর দাবিতে ২২ ডিসেম্বর হবিগঞ্জে সমাবেশ আহ্বান করে জেলা বিএনপি। পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী শহরের শায়েস্তানগরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে প্রস্তুতিও নেওয়া হয়। এতে উপস্থিত হন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক উপদেষ্টা জয়নাল আবেদিন ফারুক, ড. এনাম আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন, বিএনপির কেন্দ্রীয় সমবায়বিষয়ক সম্পাদক জিকে গউছ, কেন্দ্রীয় নেত্রী শাম্মি আক্তার, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমেদ শ্যামল।

বেলা ২টায় সমাবেশ শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু পৌনে ২টার দিকে বিএনপি নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেওয়ার সময় শায়েস্তানগর পয়েন্টে পুলিশের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে পুলিশসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১০০ জন আহত হয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে শায়েস্তানগর থেকে সার্কিট হাউস রোড পর্যন্ত এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ দুই হাজার বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে একটি মামলা করে। ওই মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীরা ২৬ ডিসেম্বর উচ্চ আদালত থেকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন নেন।

 

আজকের সর্বশেষ সব খবর