শনিবার | ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

প্রকাশিত : জানুয়ারি ৭, ২০২১




আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে ইরাকের একটি আদালত। গত বছরের জানুয়ারিতে ইরাকি মিলিশিয়া নেতা আবু মাহদি আল-মুহান্দিসকে ড্রোন হামলায় হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় এই পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যশ মিডল ইস্ট আই জানিয়েছে, ইরাকের দণ্ডবিধি ৪০৬ ধারা অনুযায়ী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। এই ধারায় পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শাস্তির বিধান মৃত্যুদণ্ড রাখা হয়েছে।

বাগদাদের বার্তা সংস্থা ইরাকি নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, আবু মাহদি আল-মুহান্দিসের পরিবারের সদস্যদের বক্তব্য বিচারক রেকর্ড করার পর বিচারক এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

বিচারক বলেছেন, এই অপরাধে অংশগ্রহণকারী; তারা ইরাকি হোক কিংবা বিদেশি, তাদের খুঁজে বের করতে তদন্ত প্রক্রিয়া চলছে,

গত বছরের ৩ জানুয়ারি বাগদাদ বিমানবন্দরের বাইরে হাশদ আল-শাবি গোষ্ঠীর উপপ্রধান মুহান্দিস মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন। একই হামলায় নিহত হন ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি।

এই অভিযানের পর ট্রাম্প বলেছিলেন, এক জনের দামে দুজনের’ হিসেব শেষ করা হলো।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ ৪৮ জন মার্কিন কর্মকর্তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করতে ইন্টারপোলের কাছে অনুরোধ জানিয়েছে ইরান। গত বছর জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। আলজাজিরা।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে ইরানি বিচার বিভাগের মুখপাত্র গোলামহোসেন ইসমাইলি জানান, সোলেইমানি হত্যায় জড়িত ট্রাম্পসহ ৪৮ মার্কিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করতে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের কাছে চিঠি দিয়েছেন তারা।

ইসমাইলি বলেন, এই অপরাধের আদেশদাতা এবং বাস্তবায়নকারীদের ধরে সাজা দিতে বদ্ধ পরিকর ইসলামিক প্রজাতন্ত্রী ইরান।

২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত হন ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানি। এ হত্যাকাণ্ডের আদেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প নিজেই। বিচারবহির্ভূত হত্যকাণ্ড বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত অ্যাগনেস ক্যালামার্ড জানিয়েছেন, সোলেইমানিকে হত্যা আন্তর্জাতিক আইনের আইনেরও পরিপন্থী।

জেনারেল সোলেইমানিকে হত্যার অভিযোগে ট্রাম্পকে গ্রেপ্তারে এর আগেও ইন্টারপোলের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিল ইরান। গত জুনে টাম্পসহ কয়েক ডজন মার্কিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধ হত্যা ও সন্ত্রাসের অভিযোগে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিল তেহরান।

তবে ফ্রান্সভিত্তিক পুলিশ সংস্থাটি ইরানের সেই অনুরোধ নাকচ করে দেয়। ইন্টারপোল বলছে, তাদের নিয়মে রাজনৈতিক, সামরিক, ধর্মীয় বা বর্ণ বিষয়ক কোনও ঘটনায় হস্তক্ষেপ নিষিদ্ধ।

সোলেইমানি হত্যাকাণ্ডের বছরপূর্তির পর সম্প্রতি আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র-ইরান সম্পর্ক। ট্রাম্পের ক্ষমতার মেয়াদ শেষ হতে চললেও প্রতিশোধ নিতে বিন্দুমাত্র ছাড় দিতে রাজি নয় ইরানি কর্তৃপক্ষ। ওদিকে, যুক্তরাষ্ট্রও চাপ বাড়াচ্ছে ইরানের ওপর।

গত মাসে উপসাগরীয় এলাকার আকাশে বেশ কয়েকবার বি-৫২ বোম্বার বিমান উড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত সোমবার ওই এলাকা থেকে একটি বিমানবাহী জাহাজ সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে ওয়াশিংটন।

আর তেহরান সতর্ক করে বলছে, আগামী ২০ জানুয়ারি ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার আগেই ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ বাধানোর চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল।

 

এই বিভাগের আরো নিউজ

জনপ্রিয়তা হারানো বিএনপি পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে চায়: এমপি আবু জাহির
শেষ ওভারে জিতলো অস্ট্রেলিয়া
শাহবাগে ‘গণঅনশন ও অবস্থান’ কর্মসূচিতে ৮ দফা দাবি
ইকবালের বিষয়ে ফখরুলের কাছে তথ্য আছে: ওবায়দুল কাদের
একেক সময় একেক তথ্য দিচ্ছেন ইকবাল
আজকের সর্বশেষ সব খবর