বুধবার | ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ঠাকুরগাঁওয়ে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৩, ২০২০




রেদওয়ানুল হক মিলন, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার যাদুরানী আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ এ, কে. এম শামীম ফেরদৌস টগরের বিরুদ্ধে হরিপুর থানায় জমি জবর দখলের একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন আবু সামাদ নামে একব্যক্তি।

জানাযায়, ২০১৫ সালে যাদুরানী আদর্শ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উক্ত জমিতে জোর পূর্বক বালি ফেলে। বর্তমানে কলেজের সীমানা প্রাচীর করার জন্য জমিতে ইট বালি মজুদ করেছেন। প্রাচীর নির্মাণে বাঁধা দিতে গেলে পূণরায় তারা ভয়-ভীতি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হেনস্ত করতে পারে ও জমি দখল পাওয়ার জন্য আবু সামাদ বাদি হয়ে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে হরিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। থানায় অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার না পেয়ে এবার ইউএনও’র বরাবরে অভিযোগ দাখিল করেন বাদি পক্ষ। এছাড়াও স্থানীয় নওসাদ আলীর কাছেও জমির বদলে জমি দেওয়া কথা বলে জমি নিয়েছি কলেজ কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তাকে এখনো কোন জমি অন্য জায়গায় দেওয়া হয়নি। এবিষয়ে তিনি থানায় অভিযোগও করেছিলেন কিন্তু কোন প্রতিকার পাননি।

বাদি পক্ষ জানান,কয়েক বছর আগে অধ্যক্ষ এ. কে. এম শামীম ফেরদৌস টগর জমির মূল্য দেওয়ার কথা বলে আবু সামাদের কাছ জমিটি নেয়।পরবর্তীতে জমির মূল্য চাইতে গেলে তিনি টাকা না দিয়ে আমাদের হাত-পা কেঁটে নেওয়া ও প্রাণে মেরে ফেলা, মিথ্যা মামলাসহ নানান হুমকি দিয়ে আসছে। উপজেলা চেয়ারম্যান, থানা ও ইউএনও’র বরাবর অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছি না। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি।

এব্যাপারে যাদুরানী আদর্শ মহাবিদ্যালয়ে অধ্যক্ষ এ. কে. এম শামীম ফেরদৌস টগরের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি।

এবিষয়ে হরিপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল বলেন, আমি বাদি পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি। বাদি পক্ষ আসলেও কলেজ কর্তৃপক্ষ আসেননি।

এব্যাপারে হরিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস.এম আওরঙ্গজেব বলেন, দুই পক্ষরই অভিযোগ পেয়েছি। দুই পক্ষকে থানায় ডাকা হয়েছিল তবে কলেজ কর্তৃপক্ষ আসেননি।

আজকের সর্বশেষ সব খবর