শুক্রবার | ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

দাম বেড়েছে চাল-তেল-ডালের

প্রকাশিত : মে ২৯, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক : আবারও বেড়েছে চালের দাম। একই সঙ্গে বেড়েছে ভোজ্যতেল ও মসুর ডালের দাম। সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বংলাদেশ’র (টিসিবি) প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

রাজধানীর শাহজাহানপুর, মালিবাগ, কারওয়ানবাজার, বাদামতলী, সূত্রাপুর, শ্যাম বাজার, কচুক্ষেত, মৌলভী বাজার, মহাখালী, উত্তরা আজমপুর, রহমতগঞ্জ, রামপুরা এবং মীরপুর-১ নম্বর বাজারের পণ্যের দামের তথ্য নিয়ে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে টিসিবি।

তথ্য অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে চিকন, মাঝারি ও মোটা সব ধরনের চালের দাম বেড়েছে। চিকন চালের দাম ৪ দশমিক ২৭ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫৮ থেকে ৬৪ টাকা। মাঝারি মানের পাইজাম ও লতা চালের দাম ৬ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৬ টাকা। আর মোটা স্বর্ণা ও চায়না ইরি চালের দাম এক সপ্তাহে ২ দশমিক ২০ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা।

গত ২১ মে তৈরি করা টিসিবির প্রতিবেদনে বলা হয়, মাসের ব্যবধানে মিনিকেট ও নাজির চালের দাম ৪ দশমিক ৮০ শতাংশ কমে কেজি ৫৫ থেকে ৬৪ টাকা বিক্রি হচ্ছে। মোটা চালের দাম ৬ দশমিক ১২ শতাংশ কমে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৪৮ টাকা। আর মাঝারি মানের চালের দাম ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ কমে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫২ টাকা।

অর্থাৎ কিছুটা কমার পর আবার বেড়ে গেলে। অথচ এখন চালের ভরা মৌসুম। অবশ্য ভরা মৌসুমে চালের দাম বৃদ্ধি অনেক আগে থেকেই মানুষকে ভোগাচ্ছে। চালের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার নানা ছাড় দিলেও তাতে কোনো কাজ হচ্ছে না।

টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে মাঝারি ও বড় দানা মশুর ডালের দাম বেড়েছে। বড় দানার মশুর ডালের দাম ৭ দশমিক ১৪ শতাংশ বেড়ে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি দানার মশুর ডালের দাম বেড়েছে ২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। এতে মাঝারি দানার প্রতি কেজি মশুর ডাল বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯৫ টাকা। আর আলুর দাম ১৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৯ থেকে ২৫ টাকা।

চাল-ডালের পাশাপাশি গত এক সপ্তাহে সব ধরনের সয়াবিন তেল ও পাম অয়েলের দাম বেড়েছে। প্রতিষ্ঠানটির তথ্য অনুযায়ী, বোতলের ৫ লিটার সয়াবিন তেলের দাম ১ দশমিক ১৫ শতাংশ বেড়ে ৬৪০ থেকে ৬৮০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। বোতলের এক লিটার সয়াবিন তেল ৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ বেড়ে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। আর খোলা সয়বিন তেলের দাম ২ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১২৪ থেকে ১২৬ টাকা।

অপরদিকে লুজ পাম অয়েলের দাম ৩ দশমিক ২৩ শতাংশ বেড়ে লিটার বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১১৪ টাকা। আর সুপার পাম অয়েলের দাম ৩ দশমিক ১১ শতাংশ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১১৪ থেকে ১১৮ টাকা। অবশ্য টিসিবি সয়াবিন ও পাম তেলের যে দাম উল্লেখ করেছে, খুচরা পর্যায়ে তার থেকে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের তেল।

খুচরা বাজারে বোতলের এক লিটার সয়াবিন তেল ১৫০ টাকার নিচে মিলছে না। এমনকি খোলা সয়াবিন তেল কিনতেও কেজিতে ১৪৫ টাকার ওপরে গুনতে হচ্ছে ক্রেতাদের।

এই বিভাগের আরো নিউজ

ইভ্যালির কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ, জেল থেকে ‘রাসেলের বার্তা’
বিশ্ববাজারে তেলের দাম ৭ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ
তেল-সবজি-মুরগির দাম বেড়েছে, কমেছে ডিম-আলুর
বাজার থেকে টাকা তুলে নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক
এক বছরে কোটিপতি বেড়েছে ১১৬৪৭ জন
আজকের সর্বশেষ সব খবর