বৃহস্পতিবার | ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ধ্বংস হচ্ছে প্রকৃতিক সম্পদ: কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

প্রকাশিত : নভেম্বর ১, ২০২২




মোঃ আলাল মিয়া ॥ নবীগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের সিমান্তবর্তী বানিয়াচং উপজেলার কাগাপাশা ইউনিয়নের চান্দপুর গ্রামে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে হারেরগজ বিল থেকে বালু উত্তোলণ করে জেলার বিভিন্নস্থান বিক্রি করছে দুই ভাই। এতে করে কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, চান্দপুর গ্রামের মাহফুজ চৌধুরী ও তার আপন ছোট ভাই টিপু চৌধুরী মিলে বছরের পর বছর ধরে হারেরগজ বিল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। বিল থেকে বালু উত্তোলনে রাত দিন কাজ করছে দুটি ড্রেজার মেশিন। আর এসব বালু বিলের পাড়ে জমা করে এক্সভেটর দিয়ে ট্রাকে তুলে নেওয়া হয় বিভিন্ন জায়গায়। অপর দিকে বালু ভর্তি ভারী ট্রাকের ওজনে নষ্ট হচ্ছে রাস্তাঘাট।

মানুষ চলাচলের সড়ক ভেঙে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে করে যান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে দুর্ভোগে জনসাধারণ। তবে দুই ভাইয়ের ভয়ে মুখ খুলতে রাজি নন এলাকাবাসী। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক হারেরগজ বিলের প্রতিবেশি মোকামবাড়ির যুবকরা জানান, বিলের চারপাশে ফসলী জমি রয়েছে। বিল যত খনন হচ্ছে। ততই আমাদের জমি গুলো হুমকির মুখে পড়ছে।

এজন্য প্রতিকার চেয়ে এলাকাবাসী অনেকবার মাহফুজ ও তার ভাইকে বোঝানো হয়েছে। তারা কোনোভাবেই বুঝতে রাজি হচ্ছে না।

এব্যাপারে জানতে চাইলে মাহফুজ চৌধুরী বলেন, প্রতি বছর ৮ লাখ টাকা সরকারের খাজনা দিয়ে আসছি। বিল থেকে বালু উত্তোলন করতে হাইকোট থেকে নির্দেশ এনেছি।

বালু উত্তোলনের সম্পর্কে জানতে চাইলে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ  বলেন, অভিযোগ পেয়ে গত বছর অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করেছিলাম। হারেরগজ বিল থেকে বালু উত্তোলন হচ্ছে খবরটি আপনাদের কাছ থেকে শুনলাম। দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজকের সর্বশেষ সব খবর