রবিবার | ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

নকলে বাধা দেওয়ায় শিক্ষককে পেটালো ছাত্রীর বাবা

প্রকাশিত : জুন ৯, ২০২৩




জার্নাল সারাদেশ বার্তা ॥ নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের বড়দিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে অর্ধবার্ষিক পরীক্ষা চলাকালে ওই বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষক সাইফুল ইসলামকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার পরীক্ষা চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে। তবে বিষয়টি বৃহস্পতিবার লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে। তাকে গোপালগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভুক্তভোগী শিক্ষকের বাড়ি নড়াইলের কালিয়া উপজেলার যোগানিয়া গ্রামে।

ভুক্তভোগী শিক্ষক সাইফুল বলেন, অর্ধবার্ষিক পরীক্ষা চলাকালে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী শ্রেয়া অপ্সরা তার বান্ধবীর খাতা দেখে পরীক্ষা দিচ্ছিল। বিষয়টি নজরে আসার পর অপ্সরাকে উঠিয়ে অন্যত্র বসতে দেই। এ ঘটনা জানাজানির পর অপ্সরার বাবা সুফিয়ান শেখ ও দাদা আয়ন উদ্দীন শেখসহ ৪/৫ জন বিদ্যালয়ে এসে কিছু বুঝে উঠার আগেই আমাকে কিল-ঘুষি, লাথিসহ পেটানো শুরু করেন। প্রাণ ভয়ে দৌঁড়ে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে আশ্রয় নেই। সেখানে গিয়েও আমাকে মেরে গুরুতর আহত করেন তারা।

অভিযুক্ত আয়ন উদ্দীন শেখ বলেন, শিক্ষক সাইফুল ইসলাম আমার নাতি অপ্সরাকে মানসিকভাবে হয়রানি করেছেন। তবে শিক্ষককে পেটানোর কথা অস্বীকার করেন তারা।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান বলেন, স্থানীয়ভাবে মিমাংসার কথা হচ্ছে। তবে ঘটনার দিন সিসিটিভির ফুটেজ দেখাতে অনীহা করেন তিনি। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ ভূঁইয়া বলেন, শিক্ষককে মারপিটের ঘটনা শোনার পর আমি খোঁজখবর নিয়েছি। ভুক্তভোগী শিক্ষককে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী মামলা দিলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজকের সর্বশেষ সব খবর