বৃহস্পতিবার | ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

পতাকা নিয়ে পাকিস্তান দূতাবাসের অসৎ উদ্দেশ্য নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত : জুলাই ২৪, ২০২২




জার্নাল ডেস্ক ॥ বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার সঙ্গে পাকিস্তানের পতাকা এক করে ফেসবুকে পোস্ট করার ক্ষেত্রে দেশটির কোনো অসৎ উদ্দেশ্য দেখছেন না পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। পাকিস্তান দূতাবাসের ফেসবুক পেইজ থেকে সেই ছবিটি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

রোববার (২৪ জুলাই) দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এই কথা বলেন। ডিএইচ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্মেলন সম্পর্কে জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশের পতাকা বিকৃতি প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘তাদের কোনো ধরনের অসৎ উদ্দেশ্য নেই। আমরা তাদের বলেছি যে, এখানে এটি বাদ দিলেই ভালো হয়। তবে পাকিস্তান হাইকমিশন বলছে যে, তাদের দেশের পতাকা এবং অন্য দেশের পতাকা একসঙ্গে মিলিয়ে তারা এ ধরনের ছবি তৈরি করে থাকে।’

গত বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুর ১টা ৩৮ মিনিটে ঢাকার পাকিস্তান হাইকমিশনের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের কভার ফটো হিসেবে দুই দেশের পতাকা একসঙ্গে করে একটি গ্রাফিক্স পোস্ট করা হয়। ছবিটি পোস্ট করার পরপরই অনেকে এ নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু করেন। একে পাকিস্তান হাইকমিশনের ধৃষ্টতা আখ্যায়িত করেন অনেকে। বিশ্লেষকরাও বলছেন, এটি পতাকাবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। সমালোচনামূলক মন্তব্যে ভরে যায় কমেন্ট বক্স। কিন্তু তারপরই কমেন্টস অপশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। তীব্র সমালোচনার মধ্যে তিন দিন পর রোববার দুপুরে সেই পতাকা সরিয়ে পাকিস্তানের পতাকা আপলোড করা হয়।

ডি-৮ সম্মেলন প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ডি-৮ সম্মেলনে বাণিজ্য বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হবে। সম-রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে কীভাবে ইন্ট্রা ট্রেড বাড়ানো যায়, তা নিয়ে আলোচনা হবে। অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি (পিটিএ) করা যায় কি না, সেটা নিয়েও আলোচনা হবে। আশা করি, আমরা পিটিএ ইপ্লিমেন্ট বাড়াতে পারব।

মন্ত্রী বলেন, সম্মেলনে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তার ওপর জোর দেওয়া হবে। এ বিষয়ে খুব জোর দেওয়া হবে। জ্বালানি নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা হবে। এটা এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। এটা এখন বৈশ্বিক ইস্যু। আমরা ক্লাইমেট রেজুলেশন্সের ওপর জোর দেব। ট্যুরিজম সেক্টর নিয়েও আলোচনা হবে, যদিও এ সেক্টরে আমরা ম্যাচিউরড না।

জ্বালানি নিরাপত্তার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এনার্জি সেক্টর ইদানীং আলোচিত ইস্যু। এনার্জি সিকিউরিটি সব সম্মেলনে আলোচনা হচ্ছে। এ সেক্টরে আমরা কীভাবে উপকৃত হতে পারি, সেটার চেষ্টা আমরা করছি। আমাদের বক্তব্য এটা থাকবে। এটা এখন হট টকিং। অন্যান্য রাষ্ট্রও মনে হয় এটা নিয়ে আলোচনা করবে।

আজকের সর্বশেষ সব খবর