বুধবার | ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

প্রশান্ত মহাসাগরে রহস্যময় দ্বীপ, এই দ্বীপে একরাত কাটালেই ঘনিয়ে আসবে মৃত্যু!

প্রকাশিত : মে ৫, ২০২১




অনলাইন ডেস্ক : অথৈ সাগরের মাঝখানে জনমানবহীন অনেক দ্বীপের অস্তিত্ব থাকলেও, এবার এমন এক দ্বীপের সন্ধান মিলেছে- যেখানে ছড়িয়ে রয়েছে রহস্যময় প্রাচীন এক শহরের ধ্বংসাবশেষ। সম্প্রতি স্যাটেলাইটের ছবিতে অনেক আগেই হারিয়ে যাওয়া প্রাচীন এ নগরটির সন্ধান মিলেছে।

দ্বীপের নাম ‘নান মাদোল’। প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে মাইক্রোনেশিয়ার পনফেই দ্বীপের পাশে ছোট এই দ্বীপ। পনফেই এর বাসিন্দাদের কাছে এটি ‘ভূতুড়ে দ্বীপ’ হিসেবে পরিচিত। নান মাদোল শব্দটির অর্থ হল, ‘মধ্যবর্তী স্থান’। দ্বীপে ৯৭টি পাথুরে ব্লকের মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে অনেকগুলি সরু খাল।

রহস্যময় এই দ্বীপ অস্ট্রেলিয়া থেকে ১৬০০ মাইল দূরে ও লস অ্যাঞ্জেলস থেকে ২৫০০ মাইল দূরে অবস্থিত। এই দ্বীপে ৯৭টি আলাদা আলাদা ব্লক রয়েছে, যার দেওয়াল ২৫ ফুট লম্বা আর ১৭ ফুট চওড়া।

বিজ্ঞানী ড্যান স্লেব্যাক জানিয়েছেন, দ্বীপটি থেকে তারা মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য পেতে পারেন। শুনতে অবাক লাগলেও কথাটা সত্য। বিজ্ঞানীদের মতে, মঙ্গলে যখন পানি ছিল, তখন এ ধরনের অগ্ন্যুৎপাতের ফলে সৃষ্ট দ্বীপ সেখানেও ছিল। পৃথিবীর এই দ্বীপটি সম্পর্কে বিস্তারিত অনুসন্ধান মঙ্গলের পানিশূন্য হয়ে যাওয়ার বিষয়টি জানা যাবে।

কিন্তু মাঝ সমুদ্রে এমন একটি দ্বীপে কারা এই শহর তৈরি করলেন, সেটা আজো অজানা। প্রত্নতাত্ত্বিকদের মতে, ১১৮০ সাল নাগাদ নান মাদোলে পাথর এবং প্রবাল দিয়ে এই শহর তৈরির কাজ শুরু হয়েছিলো। দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট।

আজকের সর্বশেষ সব খবর