বুধবার | ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বানিয়াচংয়ে মাকালকান্দি গণহত্যা দিবস উদযাপন

প্রকাশিত : আগস্ট ১৮, ২০২১




বানিয়াচং প্রতিনিধি ॥ বানিয়াচংয়ে মাকালকান্দি গণহত্যা দিবস উদযাপন উপলক্ষে পুস্পস্তবক অর্পন ও আলোচনা সভা অনষ্ঠিত হয়েছে। ১৯৭১ সালের ১৮ আগষ্ট গণহত্যায় নিহতদের চির স্মরণীয় করে রাখার লক্ষ্যে ৩৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ঐতিহাসিক মাকালকান্দি স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করে দিয়েছেন হবিগঞ্জ-২(বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনের সাংসদ আলহাজ্ব এডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান।

উদ্বোধনী ও মাকালকান্দি গণহত্যা দিবস দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আব্দুল মজিদ খান বলেছেন, গত বছর ১৮ আগস্ট যখন মাকালকান্দি স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানাতে এসে ছিলাম, তখন এখানকার জনগণ দাবি করেছিলেন সুন্দর ও প্রশস্থ জায়গায় নতুন করে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করে দেয়ার জন্য। তাদের দাবির পেক্ষিতে ও গণহত্যায় নিহতদের স্মরণীয় করে রাখার জন্য সকলের সহযোগিতায় ১ বছরের মধ্যেই এ প্রকল্পটি নির্মাণ করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। উক্ত প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।

১৯৭১ সালের এই দিনে পাক বাহিনী হিন্দু অধ্যূষিত পাঁচটি গ্রামের নিরীহ মানুষকে ব্রাশ ফায়ারে হত্যা করে। এ ছাড়া পাকিস্তানি সেনাদের দোসর রাজাকাররা গ্রামগুলোতে অগ্নিসংযোগ ও ব্যাপক লুটপাট চালায়।

জানা যায়, ১৯৭১ সালের এই দিন সকালে মাকালকান্দি গ্রামের চ-ী মন্দিরে মনসা ও চ-ী পূজার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন হিন্দু অধ্যূষিত গ্রামের বাসিন্দারা। এ সময় ৪০/৫০টি নৌকায় করে এসে পাক বাহিনী গ্রামটিতে হামলা চালায়। তারা পূজারত নারী-পুরুষদের চ-ী মন্দিরের সামনে দাঁড় করিয়ে ব্রাশ ফায়ার করে।এতে একই পরিবারের ১১ জনসহ ৮৮ গ্রামাবাসী প্রাণ হারান। এর মধ্যে ৪৪ জনই নারী ছিলেন।

হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে ফিরে যাওয়ার সময় পাক বাহিনী লুটে নেয় হিন্দুদের কয়েক কোটি টাকার সম্পদ। পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে দেয় অনেক বাড়িঘর। এতে জানমাল, সহায়-সম্বল হারিয়ে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে পড়েন।

এ বর্বর হামলার পরও বেঁচে যাওয়া লোকজন আবার হামলার আশঙ্কায় ভারতে পালিয়ে যান। পথে ডায়ারিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে আরো অন্তত ৫০ জন প্রাণ হারান।

বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ রানা এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মিয়ার পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমীর হোসেন মাস্টার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আমীন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইসরাত জাহান ঊমি, বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ইমরান হোসেন, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মিনারুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহাদ মিয়া, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ এরশাদ আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদ হোসেন খান মামুন প্রমুখ।

বক্তব্য রাখছেন হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনের সাংসদ আলহাজ্ব এডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান।

এছাড়া বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম খোকন,পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম মামুন মোল্লা, আওয়ামীলীগ নেতা আবুল হোসেন, কৃষ্ণ দেব, নজরুল ইসলাম খান, আশরাফ সোহেল, আবু আশরাফ বাবুসহ বিভিন্ন কর্মকর্তাও স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এর পূর্বে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছেন এমপি আব্দুল মজিদ, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

পরে প্রধান অতিথি কাগাপাশা ইউনিয়নে ১৯টি গৃহহীন পরিবারের মধ্যে দেয়া ঘরগুলো পরিদর্শন শেষে সন্তোষ প্রকাশ করার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

আজকের সর্বশেষ সব খবর