শনিবার | ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপির সব কমিটি বিলুপ্ত

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৫, ২০২০




জার্নাল ডেস্ক : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির অধীনস্থ সকল উপজেলা ও পৌর বিএনপির সকল কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. জিল্লুর রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। ২৪ ডিসেম্বর স্বাক্ষর করা ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তি শুক্রবার (২৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের কাছে পাঠানো হয়।

১৪ নভেম্বর জেলা বিএনপির নতুন কমিটি গঠন হওয়ার মাত্র দেড় মাসের মাথায় উপজেলা ও পৌরসভার সব কয়টি কমিটি বিলুপ্ত করার কথা জানানো হলো। ওই সময়ের মধ্যে বিএনপির অংগসংগঠন যুবদল ও ছাত্রদলের একাধিক নতুন কমিটি গঠন করা হয়। এ নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। জেলায় কসবায় এ নিয়ে বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

তবে প্রেস বিজ্ঞপ্তির পাঠানোর পর থেকেই সাংবাদিকদের এড়িয়ে চলছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. জিল্লুর রহমান। সন্ধ্যায় বেশ কয়েকবার ফোন করা হলেও পরিবারের লোকজন কল রিসিভ করে তিনি বিশ্রামে আছেন বলে জানান। তার মেয়ে পরিচয়দানকারী বলেন, কাজের চাপের কারণে ওনি বিশ্রামে আছেন। অনেক ফোন আসছে যেগুলো আমরাই রিসিভ করছি।

এদিকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জেলার সকল উপজেলা ও পৌর বিএনপির সাংগঠনিক কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় সকল কমিটি গত ৩০ নভেম্বর হওয়া সভার সিদ্ধান্তের আলোকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। বিলুপ্ত ইউনিটগুলো পরিচালনার জন্য শিগগির উপজেলার ও পৌরসভার সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

তবে কোনো কমিটি গঠন না করেই একসঙ্গে নয়টি উপজেলা ও পাঁচটি পৌরসভার ইউনিট একসঙ্গে বিলুপ্ত করায় এ নিয়ে নেতা-কর্মীদের মাঝে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। তবে এই মুহুর্তে কেউ এ বিষয়ে সরাসরি মুখ খুলতে চাইছেন না।

বিলুপ্ত ঘোষিত বিজয়নগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. মহসীন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মো. মাহবুবুর রহমান একই সুরে কথা বলেন। তারা বলেন, জেলার নেতৃবৃন্দ যেটা ভালো মনে করেছেন সেটাই করেছেন। আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।

বিলুপ্ত ঘোষিত কসবা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. ইকলিল আজম বলেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সভায় এ নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এটা গতানুগতিক ধারায় করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে হয়তো সব কমিটি করা দেওয়া হবে।

তবে বিলুপ্ত ঘোষিত নাসিরনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল হান্নান বলেন, সাংগঠনিক নিয়ম অনুসারে একটা কমিটি বিলুপ্ত করলে অন্তত একটা আহ্বায়ক কমিটি করে দেওয়া উচিত ছিল। এখন শুনেছি আহ্বায়ক কমিটি সাংগঠনিক সফর করে নতুন কমিটি গঠন করবে।

আজকের সর্বশেষ সব খবর