শনিবার | ২৩শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

মার কোম্পানি বন্ধের আদেশ বাস্তবায়নে বেলার মতবিনিময়

প্রকাশিত : এপ্রিল ২৬, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক : হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলাতে ঢাকা সিলেট হাইওয়ে সংলগ্ন মার কোম্পানির লিমিটেড উৎপাদন আপাতত বন্ধ রাখতে গত ১৫ মার্চ আদেশ দেন হাইকোর্ট। এই আদেশ বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা) মার লিমিটেড কর্তৃক পরিবেশ দূষণের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন বিষয়ে এক ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত এই ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভায় স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত, ভুক্তভোগী জনগণ, হবিগঞ্জের স্থানীয় সাংবাদিকগণ, পরিবেশকর্মী ও বেলার নেটওয়ার্ক মেম্বারগণ অংশগ্রহণ করেন। ক্ষতিগ্রস্ত ও ভুক্তভোগী জনসাধারণের পক্ষ থেকে শিল্পদূষণের প্রভাব, গৃহীত উদ্যোগ, বর্তমান অবস্থা, সুপারিশমালা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

সভায় পরিবেশ দূষণের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতের আদেশের ফলে মার লি. এর বর্তমান আইনগত অবস্থান তুলে ধরে ধারনাপত্র উপস্থাপন করা হয়। বেলার বিভাগীয় সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট শাহ সাহেদা ধারনাপত্র উপস্থাপন করেন। পরে বেলার লিগ্যাল কো অর্ডিনেটর অ্যাডভোকেট সাইদ আহমেদ কবীর সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আদালতের আদেশের বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেন।

এরপর মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন দি ডেইলি স্টারের হবিগঞ্জ প্রতিনিধি মিন্টো দেশোয়ারা, প্রথম আলো হবিগঞ্জের প্রতিনিধি হাফিজুর রহমান নিয়ন, দেশ রুপান্তর হবিগঞ্জের প্রতিনিধি শোয়েব চৌধুরী, বাপা হবিগঞ্জের সহসভাপতি তাহমিনা বেগম গিনি, বাপা হবিগঞ্জের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন সোহেল, বেলা হবিগঞ্জ জেলার নেটওয়ার্ক সদস্য খাইরুল হোসেন মনু, জালাল উদ্দিন রুমী, শাকিলা ববি। ক্ষতিগ্রস্ত ও ভুক্তভোগীদের মধ্যে আব্দুল কাইয়ুম, শামীম আহমদ, জসীম উদ্দিন অংশগ্রহণ করেন।

এছাড়া বেলার পক্ষে অংশগ্রহণ করেন মনিটরিং কো-অর্ডিনেটর সায়েমা আফরোজ, ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর এ এম এ মামুন, ফিল্ড অফিসার আল আমিন সরদার, সিলেট। সভাটি সঞ্চালনা করেন- বেলার হেড অফ দ্যা প্রোগ্রাম মো. খোরশেদ আলম।

ধারণাপত্রে উল্লেখ করা হয়, মার লিমিটেড উৎপাদন প্রক্রিয়ার শেষ বর্জ্য এখতিয়ারপুর খাল হয়ে পরবর্তীতে জাংগার খাল হয়ে বলভদ্র, কানাই ও খাষ্টি নদীর সাথে মিশে যায়। আবার এ খালের একটি শাখা মেঘনা নদীতে মিশেছে। আর ঠিক এ দুর্গন্ধের কারণে এ গ্রামে কেউ আত্মীয়তা করতে চান না। এটা একটা মানবিক বিপর্যয়। বর্তমানে খালে কোনো প্রকার মাছেরই অস্তিত্ব নেই। বর্ষাকালে বেশি পানিতে খালে মাছ ঢুকলেও তা পরবর্তীতে মরে ভেসে ওঠে। হাস, মোরগ, গবাদি পশুপালন, কৃষি জমির সেচসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল কাজে খালের পানি ব্যবহার করা হতো। এখন সেটা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কৃষি জমি নষ্ট হচ্ছে, জমির ফসল উৎপাদন ক্ষমতা হ্রাস পেয়েছে। কেমিক্যালযুক্ত খালের বিষাক্ত পানি পান করে প্রায়ই গবাদি পশু, হাঁস মোরগ মারা যাচ্ছে।

মার লিমিটেড উৎপাদন প্রক্রিয়ার শেষ বর্জ্য দ্বারা খালের পানি দূষিত হয়েছে কালো রং ধারণ করেছে, খালের পানি থেকে চারিদিকে প্রকট দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। দুর্গন্ধে খালের দু’পারের বাসিন্দারা দূর্বিসহ জীবনযাপন করছেন। এলাকার অনেকেই চর্মরোগসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। পরিবেশ দূষণ (মাটি, পানি ও বায়ু দূষণ), শব্দ দূষণ, জনস্বাস্থ্য, আর্থ-সামাজিক, কৃষি, শিক্ষা, মৎস্য সম্পদ, প্রাণী ও পশু সম্পদের ক্ষতিকর উপর প্রভাব পরেছে। শিল্পদূষণ ঠেকাতে বেলার পক্ষ থেকে মার লি. কর্তৃক দূষণ রোধে এটি ঘোষিত শিল্প এলাকায় স্থানান্তর ও দূষণের কারণে ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ ও তা আদায়ের দাবী জানিয়ে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ একটি লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেছে। এছাড়া সরকারি উদ্যোগে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বিভিন্ন সময়ে জরিমানা আরোপ ও পরিবেশ সম্মতভাবে শিল্পপ্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।

সর্বশেষ বেলা উচ্চ আদালতে একটি রিট আবেদন করে। ১৫ মার্চ ২০২১ প্রাথমিক শুনানি শেষে কারখানাকে স্থানান্তরসহ এক মাসের মধ্যে কার্যক্রম বন্ধ, দূষণের কারণে ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন আদালত। এ আদেশের বিরুদ্ধে মার লি. কর্তৃপক্ষ আপীল দায়ের করেন। ২০ এপ্রিল ২০২১ চেম্বার জজ শুনানি না করে ২৬ এপ্রিল পূর্ণাঙ্গ কোর্টে শুনানির আদেশ দেন। এতে পরবর্তী আদেশ বহাল থাকে। ২১ এপ্রিল প্রশাসনসহ দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ মার লি. কোম্পানিকে বন্ধ করে দেয়।

মুক্ত আলোচনায় বাপা হবিগঞ্জের সহ সভাপতি তাহমিনা বেগম গিনি বলেন, মার লি. এর দূষণ দুর্গন্ধে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। উচ্চ আদালতের রায়ে উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তারা আবার যাতে দূষণ কার্যক্রম শুরু করতে না পারে এবং এর স্থায়ী সমাধান হয় সে দিকে সবার দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন।

এখতিয়ারপুর গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী আ. কাইয়ুম বলেন, মার লি. এর উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ হওয়ায় এলাকার মানুষজনের মধ্যে সস্তি এসেছে। এলাকার মানুষজনের দাবি এর কার্যক্রম যেনো স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়, স্থানান্তরিত হয় ও ক্ষতিপূরণ আদায় করা হয়। তিনি আশংকা প্রকাশ করে করেন কোম্পানির সমর্থিত লোকজন এর উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ হওয়ায় এলাকায় অনেকটা বেপরোয়া। এতে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতির আশঙ্কা রয়েছে।

বেলা হবিগঞ্জ জেলার নেটওয়ার্ক সদস্য খাইরুল হোসেন মনু বলেন, সাময়িক বন্ধ প্রথম ধাপ। মার লি. এর দূষণের কারণে রাস্তাঘাটের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এগুলো পুনঃনির্মাণ করতে হবে, খালে জমাকৃত ময়লা অপসারণ করতে হবে। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। তিনি ভবিষ্যতে এমন ক্ষতিক্ষর ইন্ডাস্ট্রির কার্যক্রমের অনুমোদন প্রদান না করার অনুরোধ জানান।


মার কোম্পানির দূষণে খালের পানি কালো রং ধারণ করে, দুর্গন্ধে খালের দু’পারের বাসিন্দারা দূর্বিষহ জীবনযাপন করছেন।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন সোহেল বলেন, পরিবেশ দূষণকারী প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ হওয়া প্রয়োজন। শিল্পদূষনের কারণে হবিগঞ্জের পরিবেশ মারাত্মক বিপর্যয়ের সম্মুখীন। এলাকাবাসীদের কেনো জীবনজীবিকার কথা বাদ দিয়ে এসব বিষয়ে কথা বলতে হবে। দেশে আইন আছে, আদালত আছে। সবার উচিত দেশের আইন ও আদালতের রায় মেনে চলা।

উল্লেখ্য, মার কোম্পানি লিমিটেড নামে কারখানাটি হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলায় অবস্থিত। ঢাকা-সিলেট হাইওয়ে সংলগ্ন শাহপুর (১০নং নোয়াপাড়া ইউনিয়নের) নামক স্থানে কারখানাটির অবস্থান। কারখানাটিতে ভুট্টা থেকে স্টার্চ তৈরি করা হয়। ২০১২ সালে কারখানাটি স্থাপিত হয় এবং ২০১৩ সালে উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করে। মার লিমিটেড উৎপাদন প্রক্রিয়ার শেষ পর্যায়ে উচ্ছিষ্ট কেমিক্যাল যুক্ত বর্জ্য পাইপের মাধ্যমে এখতিয়ারপুর গ্রামের খালে ছেড়ে দেয়া হয়। বর্জ্য এখতিয়ারপুর খাল হয়ে পরবর্তীতে জাংগার খাল হয়ে বলভদ্র, কানাই ও খাষ্টি নদীর সাথে মিশে যায়। আবার এ খালের একটি শাখা মেঘনা নদীতে মিশেছে। মার কোম্পানির দূষণে খালের পানি কালো রং ধারণ করে, খালের পানি থেকে চারিদিকে প্রকট দুর্গন্ধ ছড়ায়। দুর্গন্ধে খালের দু’পারের বাসিন্দারা দূর্বিষহ জীবনযাপন করছেন।

এই বিভাগের আরো নিউজ

হবিগঞ্জে শুভসংঘকে শক্তিশালী সংগঠনে রুপ দেয়ার প্রত্যয়
খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনায় হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির দোয়া মাহফিল
অন্য ধর্মের মানুষকে সুরক্ষা নিশ্চিতের শিক্ষা দেয় ইসলাম: এমপি আবু জাহির
হবিগঞ্জে যথাযথ মর্যাদায় পালিত হয়েছে পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (ভিডিওসহ)
হবিগঞ্জে সনাতনধর্মী হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করলেন জেলা প্রশাসক
আজকের সর্বশেষ সব খবর