মঙ্গলবার | ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সরকার জালেম, হটানো ঈমানি দায়িত্ব: মান্না

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক : জালেম আখ্যা দিয়ে বর্তমান সরকারকে হটাতে গণ আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না। সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে সংস্কারপন্থি পরিচয় পাওয়ার পর দল থেকে আওয়ামী লীগে অপাংক্তেয় হয়ে যাওয়া এই নেতার দাবি, এই আন্দোলনে অংশ নেয়া মানুষের ঈমানি দায়িত্ব।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছিলেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপির জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়া এই নেতা। মান্না বলেন, ‘এই জালেম সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেওয়া ঈমানি দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।’

ভোটে সরকার পরিবর্তন হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সারা পৃথিবীতে এই ধরনের স্বৈরশাসনের পতন হয়েছে আন্দোলনের মাধ্যমে। আপনাদেরও আন্দোলন করতে হবে। আমি নিজেও শান্ত লোক। কিন্তু এই সরকারের জন্য শান্ত থাকার কোনো উপায় নেই। এখন আমাদের মূলত একটাই দাবি- হাসিনা সরকারের পতন এবং নতুন করে নির্বাচন দিতে হবে। এই লক্ষ্যে আপনারা যে যেখান থেকে দাঁড়াবেন, আপনাদের পাশে আমরা থাকব।’

এই সরকারের মৃত্যু ঘণ্টা বেজে গেছে দাবি করে মান্না বলেন, ‘এরা যত চুরি করেছে, যত ডাকাতি করেছে, সেগুলো ফেরত দিতে হবে। যত অত্যাচার করেছে, সবকিছুর বিচার হবে।’

মান্না কথা বলেন, তৃতীয় দফায় পৌর নির্বাচনে টাঙ্গাইলে বিএনপির প্রার্থী মওলানা ভাসানীর নাতি প্রার্থী মাহমুদুল হক সানুর হেরে যাওয়া প্রসঙ্গে।

টাঙ্গাইল পৌরসভায় এসএম সিরাজুল হক আলমগীরের নৌকায় ভোট পড়েছে ৬৬ হাজার ৬১৭ টি। প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী মাহমুদুল হক সানু পেয়েছেন ২২ হাজার ৯০০ ভোট।

নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি অভিযোগ করে সানুর বা ও মওলানা ভাসানীর মেয়ে মাহমুদা খানম ভাসানী গত ৩১ জানুয়ারি টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

মান্না বলেন, ‘বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা মওলানা ভাসানীর মেয়ে টাঙ্গাইলে অনশন করেছে। তিনি নিজেই ভোট দিতে পারেননি। দেশে আজ কোনো ভোটাধিকার নাই। গুন্ডা, হুন্ডা দিয়ে ভোট এখন আর নাই। এখন পুলিশ-প্রশাসন নিজেরাই গুন্ডা।’

দেশের পত্রিকা এবং টেলিভিশনের গলায় সরকার ‘পা’ তাদের কথা বলতে দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন মান্না।

কুয়েতে লক্ষ্মীপুর-২ আসনে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য কাজী সহিদ ইসলাম পাপুলের সাজা নিয়েও কথা বলেন মান্না। তার দাবি, পাপুল আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য।

তিনি বলেন, ‘এই সরকারের একজন এমপি মানি লন্ডারিং করেছেন, মানবপাচার করে বিদেশের মাটিতে ধরা পড়েছেন। কোনো ব্যবস্থা নিয়েছে? প্রধানমন্ত্রীর অভিনয় দেখে মাঝে মাঝে মনে হয়- তিনি কেন রাজনীতি করেন? অভিনয় করলে আরও ভালো করতেন।’

জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) এর চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, বিকল্পধারার একাংশের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বেপারী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি এম আবদুল্লাহও এ সময় বক্তব্য রাখেন।

আজকের সর্বশেষ সব খবর