বৃহস্পতিবার | ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সহস্রাধিক নেতাকর্মী নিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করলেন জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান আরিফ

প্রকাশিত : মার্চ ২৩, ২০২২




স্টাফ রিপোর্টার॥ বাগ্মি নেতা বিপিন পাল ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদুল হকের গ্রাম পইল। হবিগঞ্জ শহরতলীর এই গ্রাম এবং ইউনিয়নটি জেলার রাজনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট মো. আবু জাহির তিলে তিলে ওই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগকে সু-সংগঠিত করেছেন। পইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ যে সু-সংগঠিত তার প্রমাণ হয়েছে এবারের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে।

বুধবার (২৩শে মার্চ) পইল বান্নি মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সেখানে নির্মাণ করা হয় বিশাল প্যান্ডেল। আর হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগর এলাকায় পইল রোড থেকেই শুরু হয় তোরণ। প্রায় ৩০টি তোরণ দিয়ে স্বাগত জানানো হয় এমপি আবু জাহিরকে। বুধবার বিকেলে যখন এমপি আবু জাহিরের নেতৃত্বে হবিগঞ্জ শহর থেকে অতিথিবৃন্দ পইলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তখন মাছুলিয়া ব্রীজ থেকেই শত শত নেতাকর্মী মোটরসাইকেল শোভাযাত্রায় বরণ করা হয় এমপি আবু জাহিরকে। শোভাযাত্রাটি যথই অগ্রসর হয় দেখা যায় রাস্তার পাশে গ্রামের লোকজনসহ ঘর থেকে মহিলারা এসেও দাড়িয়ে রয়েছেন এমপি আবু জাহিরকে স্বাগত জানাতে। বিভিন্ন স্থানে ব্যান্ড পার্টির সুরের মুর্চনায় নেতৃবৃন্দ ফুল ছিটিয়ে বরণ করেন তাকে। এভাবেই সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হন এমপি আবু জাহির।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও পইল ইউনিয়নের সম্মেলনে নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে রিতিমত জনসমূদ্রে রুপ নেয়।
সম্মেলনের শুরুতেই জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে প্রধান অতিথি জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট মো. এমপি আবু জাহির এমপি ও বিশেষ অতিথি এডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরী শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করেন।

পইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সাহেব আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শিবেন্দু দাশ শিবুর সঞ্চালায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট মো. আবু জাহির এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরী, হবিগঞ্জ পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান শামিম। সম্মেলনে উদ্বোধক ছিলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ মোতালিব এবং প্রধান বক্তা ছিলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহমান। বক্তৃতা করেন শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক হোসাইন মোহাম্মদ আদিল জজ মিয়া,হবিগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক আব্দুল আউয়াল তালুকদার ও সাংগঠিক সম্পাদক আব্দুল মুকিত।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এমপি আবু জাহির বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের বিরুদ্ধে দেশে বিদেশে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এই ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। পইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সাংগঠিকভাবে সুসংহত অবস্থায় আছে। সকলে মিলে দলের জন্য কাজ করতে হবে। এই সরকারের ভাল কাজের কথা জনগনকে জানাতে হবে। তিনি পইল ইউনিয়নে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের বর্ণনা তুলে ধরেন এবং আগামীতে আরও ব্যাপক উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করা হবে বলে ঘোষণা দেন।

সম্মেলনের শেষে কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক পদে আগ্রহী নেতাকর্মীদের নাম নেয়া হয়। পরবর্তীতে কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে নেতৃবৃন্দ ঘোষণা করেন।

এ দিকে সম্মেলনে নতুন আকর্ষণ হিসাবে যোগ হয় পইল ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান সৈয়দ মঈনুল হক আরিফ এর আওয়ামী লীগে যোগদান। আরিফ চট্ট্রাগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজী সাহিত্যে অনার্স ও মাস্টার্স করে পড়ালেখা করেন ইংল্যান্ডে। দেশে ফিরে এসে পারিবারিক ঐতিহ্য এবং জনগনের অনুরোধে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা পইল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এবারের ইউপি নির্বাচনেও বিপুল ভোটে ২য় বারের মত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি যখন ১ম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তখন তার পিতা মরহুম সৈয়দ আহমদুল হক হবিগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান। সৈয়দ আহমদুল হক হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় শুরু থেকে টানা ৪বার নির্বাচিত হন। এর মাঝে একবার হন বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায়। তিনি পইল ইউনিয়ন পরিষদেরও তিনবারের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। সেখানেও তিনি একবার বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। মঈনুল হক আরিফ এর দাদা মরহুম সৈয়দ ময়না মিয়াও পইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল ইউনিয়ন তথা হবিগঞ্জ সদর উপজেলায় সৈয়দ মঈনুল হক আরিফ ও তার পরিবার ব্যাপক জনপ্রিয়। কিন্তু তিনি এবং তার পরিবারের কেউ সরাসরি রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন না। এবার হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট মো. আবু জাহিরের আহবানে সাড়া দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন। রিতিমত রাজকীয়ভাবে বুধবার বিকেলে পইল মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সহ¯্রাধিক নেতাকর্মী নিয়ে তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

এমপি আবু জাহির তাকে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগে স্বাগত জানান এবং প্রত্যাশা করেন তার মাধ্যমে পইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

আওয়ামী লীগে যোগদান করে আনন্দে আপ্লুত সৈয়দ মঈনুল হক আরিফ বলেন, তিনি এবং তার পরিবারের কেউ সরাসরি কোন রাজনীতি না করলেও আওয়ামী লীগের সাথে সুসম্পর্ক ছিল। আওয়ামী লীগে যোগদান করার কারন হিসাবে তিনি এই দলের নীতি ও আদর্শের পাশাপাশি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন। দলে স্বাগত জানানোর জন্য তিনি এমপি আবু জাহিরের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

আজকের সর্বশেষ সব খবর