মঙ্গলবার | ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

হবিগঞ্জে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, আসামি ২ হাজার

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৩, ২০২১




জার্নাল প্রতিবেদক ॥ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় ৬৫ জনের নাম উল্লেখসহ দুই হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় সদর থানার এস আই নাজমুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক মেয়র জিকে গউছকে প্রধান আসামি করা হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাসুক আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ঘটনায় আটক ১০ জনকে মামলার পর গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে মোট ১ হাজার ২০০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৯০ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। মামলায় জি কে গউছকে ছাড়াও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. এনামুল হক সেলিমকেও আসামি করা হয়েছে।

এদিকে, গ্রেপ্তার আতঙ্কে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। অনেকেই ইতিমধ্যে শহর ছাড়া হয়েছেন।

জেলা ছাত্র দলের সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমেদ চৌধুরী বলেন, আমরা মারও খেলাম, এখন পালিয়েও থাকতে হচ্ছে। কেউ ঘরে ঘুমাতে পারছি না। অথচ সমাবেশে যোগ দিতে নেতাকর্মীরা যখন জড়ো হচ্ছিল তখন শহরের প্রতিটি পয়েন্টে পুলিশ বাঁধা দেয়, সংঘর্ষ হয়। ছাত্রদল নেতা সাইদুর রহমানের একটি চোখ নষ্ট হয়েছে। সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ রাজিব আহমেদ রিংগানের অবস্থাও আশংকাজনক।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলি জানান, কাউকে অযথা হয়রানি করা হচ্ছে না। নিরপরাধ কেউ হয়রানীর শিকারও হবে না।তিনি আরও বলেন, তবে যারা জনগণের জানমালের ক্ষতি করেছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে সচেতন মহলে আলোচনা-সমালোচনা এ বিষয়কে কেন্দ্র করে পুলিশ নিরপরাধ লোকজনকে জড়িয়ে হয়রানী ও বাণিজ্য করার সুযোগ নিবে। এতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন মহলের দৃষ্টি রাখতে হবে। যাতে এই সুযোগে অযথা কেও হয়রানীর শিকার না হন। জনৈক আইনজীবী জানান, মহামান্য হাইকোর্টের এক নির্দেশ আছে, কোন বিবাদীর হাতে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে জনসম্মুখে প্রদর্শন করা যাবে না। এই নির্দেশনার প্রতিবৃৃদ্ধাঙ্গুল দেখাচ্ছে অনেকই।

আজকের সর্বশেষ সব খবর