বৃহস্পতিবার | ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

প্রকাশিত : নভেম্বর ১৭, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক ॥ মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি বলেন, ফিদেল কাস্ত্রোর মতো মওলানা ভাসানীও বলতেন ‘হয় সমাজতন্ত্র, না হয় মৃত্যু!’ এটি ব্যক্তিগত মৃত্যু নয়, সমষ্টিগত মৃত্যু। মওলানা ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হচ্ছে। ভবিষ্যতেও বুর্জোয়ারা এই চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

বুধবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা ভাস্কর্যের সামনে মওলানা ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ‘মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী পরিষদ’ এর আয়োজন করে।

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, মওলানা ভাসানী মেহনতি মানুষের কথা বলতেন। তিনি বলতেন তাদের কথা যাদের শ্রমের ওপর আমাদের উন্নতি নির্ভর করে। আপোষকামীরা যখন বলতেন, ‘আমরা আগে স্বাধীন হব, তারপর সমাজতন্ত্র-গণতন্ত্র কায়েম করব।’ তখন মওলানা ভাসানী বলতেন, ‘স্বাধীনতার সংগ্রাম ও সমাজতন্ত্রের আন্দোলন এক ও অভিন্ন।

তিনি আরও বলেন, মওলানা ভাসানীকে কখনোই মানুষের মন থেকে মোছা যাবে না। কেননা যতদিন মেহনতি মানুষ আছে, তাদের সংগ্রাম আছে, ততদিন মওলানা থাকবেন। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, বাংলাদেশের ইতিহাস থাকবে, ততদিন তাকে মুছে ফেলা যাবে না।

পরিষদের সভাপতি আকমল হোসেনের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) সভাপতি বজলুল রশিদ ফিরোজ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জাতীয় গণফ্রন্টের সমন্বয়ক টিপু বিশ্বাস, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এস এম কামাল উদ্দিন প্রমুখ।

টিপু বিশ্বাস বলেন, মওলানা ভাসানীকে নিয়ে বক্তব্য দিয়ে শেষ করা যাবে না। তিনি যা চেয়েছিলেন তা প্রতিষ্ঠা করতে পারলে তাকে সম্মান জানানো হবে। তার জন্য সাম্রাজ্যবাদ, সামন্তবাদ, ভারতীয় আধিপত্যবাদ, দালাল, লুটেরাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে আমাদের এই দেশকে শোষণমুক্তির দিকে নিয়ে যেতে হবে।

মোশরেফা মিশু বলেন, মওলানাকে যারা চেনেন না বা অনুসরণ করেন না তাদের পক্ষে মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা সম্ভব না। তার মতো মজলুম জননেতা আর কেউ হতে পারেনি, হওয়ার লক্ষণও দেখা যাচ্ছে না। এই সরকার হচ্ছে মূল্য বৃদ্ধির সরকার। সরকার নিজের ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করার অপচেষ্টা করছে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে গান-কবিতাসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে মওলানা ভাসানীর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এই বিভাগের আরো নিউজ

ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
ভাসানীকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে: সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী
আজকের সর্বশেষ সব খবর