শনিবার | ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সারাদেশ অচল করে দেওয়া হুমকি হেফাজতের

প্রকাশিত : মার্চ ২৮, ২০২১




জার্নাল ডেস্ক : হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক বলেছেন, ‘আর যদি আমার কোনো ভাইকে হত্যা করা হয়, আবার যদি গুলি চলে, আর যদি কোনো ভাইয়ের রক্ত ঝরে, তাহলে টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পুরো বাংলাদেশ অচল করে দেওয়া হবে।’

রোববার (২৮ মার্চ) হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলাকালে দুপুর পৌনে ১টায় বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

মামুনুল হক বলেন, আজ হেফাজতের হরতাল কর্মসূচি ছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগের কোনো কর্মসূচি ছিল না। তবু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে মাঠে দেখা গেছে আওয়ামী পান্ডাদের। আমার শান্তিপ্রিয় ভাইদের ওপর পুলিশ-বিজিবি নির্বিচারে গুলি ছুড়েছে। মধুগড়ের বর্ষীয়ান আলেম হেফাজতের নায়েবে আমির মাওলানা আবদুল হামিদ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এটা কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করল। মনে রাখবেন, এভাবে গুলি করে হেফাজতকে দমানো যাবে না, বরং আপনি আপনার গদি টেকাতে পারবেন না।

মামুনুল হক বলেন, হাটহাজারীতে, বি.বাড়িয়ায় আমার ভাইয়ের রক্ত পান করেছেন। নির্বিচারে গুলি ছুড়ছেন। এরপরেও কি আপনাদের রক্ত পিপাসা মেটেনি? এভাবে গোটা বাংলাদেশের জনগণকে খুন করে আপনারা কি রামরাজত্ব চালাতে চান?

তিনি বলেন, আমরা শান্তিশৃঙ্খলার সঙ্গে কর্মসূচি পালন করছি। রক্ত ঝরিয়ে রাজপথ থেকে হেফাজত কর্মীদের সরানো-দমানো যাবে না। আবার যদি আমার কোনো ভাইয়ের রক্ত ঝরে, হত্যা করা হয়, আর একটি যদি গুলি ছোড়া হয়, তাহলে গোটা দেশকে অচল করে দেওয়া হবে।

মামুনুল হক বলেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন জায়গায় আগুন লাগিয়ে আমাদের আন্দোলনকে রাজনীতিকরণের চেষ্টা করছে। আওয়ামী লীগের কোনো কর্মসূচি ছিল না। কিন্তু আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হেফাজত সদস্যদের আক্রমণ করে।

তিনি বলেন, আমাদের অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের অবশ্যই আজ সন্ধ্যা নাগাদ মুক্তি দিতে হবে। ঢাকাসহ সারাদেশে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের মৃত্যুর প্রতিশোধ চাই। আমরা এই হত্যার বিচার চাই। আমরা যদি এই রক্তপাতের ন্যায়বিচার না পাই তবে আগামী দিনগুলোতে আরও কঠোর আন্দোলন হবে।

কোথাও কোনো গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়নি বলে দাবি করেন মামুনুল হক। তিনি নেতাকর্মীদের বিশৃঙ্খল না করার জন্য ও বহিরাগতদের ফাঁদে পা না দিয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে আরো বক্তব্য রাখেন মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজি এবং জোনায়েদ আল হাবিব।

এই বিভাগের আরো নিউজ

কিডনি ও লিভারে সমস্যা: হাসপাতালে থাকতে হবে খালেদা জিয়াকে
প্রতি ইউপিতে সাড়ে ৫ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী
জনগণ বিএনপিকে কেনো ভোট দেবে, জানালেন মির্জা ফখরুল
খালেদা জিয়ার নেতৃত্বেই আওয়ামীলীগের পতন হবে, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা হবে
জাপা নেতা জালাল উদ্দিন খানের মায়ের মৃত্যুতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও মহাসচিবের শোক
আজকের সর্বশেষ সব খবর