শনিবার | ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

হবিগঞ্জে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক, আটক ৯

প্রকাশিত : মার্চ ২৭, ২০২১




জার্নাল প্রতিবেদক : হবিগঞ্জে বিএনপির অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বেশ কয়েকটি রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র জি কে গউছের ছেলে ব্যারিস্টার মঞ্জুরুল কিবরিয়া প্রীতম, ভাই জি কে গফ্ফার ও তার ছেলে আদনান ফারহাদ রাফিদসহ অন্তত নয়জনকে আটক করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় বিএনপির কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতাকর্মীরা শায়েস্তানগর এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এরপর হবিগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ব্যারিকেড দেয়। এসময় পুলিশ ও নেতাকর্মীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়।

একপর্যায়ে ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেকদলের নেতাকর্মীরা বাধা উপেক্ষা করে মিছিল নিয়ে সামনের দিকে গেলে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া দেয়। পরে তারা সংগঠিত হয়ে পুলিশের উপর হামলা করলে পুলিশ সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে সদর থানায় আশ্রয় নেয়। এ সময় তারা রাস্তা অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে।

পরে সদর থানার পুলিশ ছুটে এলে নেতাকর্মীরা তাদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এ সময় বেশ কয়েকটি ইজিবাইক ভাঙচুর করা হয়। এক পর্যায়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

এ ঘটনায় আহত কনস্টেবল মো. রিয়াজকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং আহত বিএনপি নেতাকর্মীরা গ্রেপ্তার আতঙ্কে পালিয়েছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সাবেক মেয়র জি কে গউছ জানান, তার বাসা থেকে ভাই, ছেলে ও ভাতিজাকে আটক করেছে পুলিশ। এটি একটি পরিবারের প্রতি জুলুম। তিনি বলেন, সংঘর্ষ রাস্তায় হয়েছে। যারা ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হোক। কিন্তু নিরপরাধ লোকদের কেন আটক করা হচ্ছে।

হবিগঞ্জ সদর থানা ওসি মো. মাসুক আলী বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের ইটপাটকেলের আঘাতে প্রায় ১০ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পুলিশ নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এর সঙ্গে জড়িত আটজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 

আজকের সর্বশেষ সব খবর